আজ ২৯শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১২ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

অপহরণ ও হত্যার উদ্দেশ্যে মারধরের মামলায় আলোকবালি ইউপি চেয়ারম্যানসহ ১৪ আসামী জেলে।

নরসিংদী পোস্ট–

নরসিংদীতে অপহরণ করে হত‍্যার উদ্দেশ‍্যে মারধর করার মামলায় নরসিংদী সদর  উপজেলার আলোকবালি ইউপি চেয়ারম‍্যান দেলোয়ার হোসেন দিপুসহ ১৪ জন আসামির জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

রোববার (৩১ জুলাই) জেলা ও দায়রা জজ মোশতাক আহমেদ এ আদেশ দেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, নরসিংদী সদর উপজেলার আলোকবালি ইউনিয়নের  উত্তর পাড়া গ্রামের আমিরুল ইসলাম ও এমরান হোসেন নামে দুই মামা ভাগিনা গত ২৮ এপ্রিল রাত সাড়ে আটটার দিকে আরশিনগর সিএনজি স্টেশন থেকে সিএনজি যোগে মনিপুরার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়।

রাত নয়টার দিকে তারা হাসনাবাদ ছন্দা সিনেমা হলের সামনে পৌঁছলে দেলোয়ার হোসেন দিপু,মতিন ও হাবিবের নির্দেশে ৭ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল তাদের গতিরোধ করে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে অপহরণ করে রায়পুরা উপজেলার আদিয়াবাদ শিকদার পাড়ার নির্জন বিলপাড়ে নিয়ে যায়।

সেখানে নিয়ে এমরান দিপু গংদের বিরুদ্ধে মামলা করার অপরাধে তাদের মুখের ভেতর গামছা ঢুকিয়ে অমানুষিক নির্যাতন চালায়।

এসময় তারা তাদেরকে হত্যার উদ্দেশ্যে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে এবং তাদের চোখ উপড়ে ফেলে আসামীরা চলে যায়।

এদিকে মামা ভাইগ্নার কোন খোঁজখবর না পেয়ে তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে রাতেই বিষয়টি নরসিংদী মডেল থানা পুলিশকে অবগত করা হয়। পরে আমিরগঞ্জ থানা পুলিশ রাত দেড়টার দিকে মুমূর্ষ অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় ১৪ জনের নাম উল্লেখ পূর্বক ৪/৫ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে গত ২৮ এপ্রিল নরসিংদী মডেল থানায় আল-ইসলাম বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-৩৯,রায়পুরা থানার মামলা নং ১(৫)২২

মামলার আসামিরা হলো, মামুন( ৩০), বাবু (২২) ,উজ্জ্বল (৩২) সর্ব পিতা সাহেব আলী, আবিদ (২৮) পিতা রহমান, আমির(৩৫), সোহেল( ২৫) উভয় পিতা হক মিয়া, আপেল (৩০) পিতা ওমর আলী,সর্বসাং আলোক বালি উত্তরপাড়া, দেলোয়ার হোসেন দিপু (৫০ ) পিতামৃত আব্দুর রাজ্জাক, হাবিব (৪০) পিতা মোতালিব, উভয় সাং বাখরনগর,মতিন(৫২) পিতা কুডু মিয়া সাং নেকজানপুর, নাদিম((৪৪) পিতা মৃত আঃ হাই, হযরত আলী (৩৫), আল-আমিন (৩০) উভয় পিতা আঃ ছাত্তার, মোমেন (২৫) পিতা মোন্তাজ মিয়া সর্ব সাং আলোকবালী, থানা ও জেলা নরসিংদী সহ অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জন।

এ ঘটনায় মামলার প্রধান আসামি মামুনকে পুলিশ গ্রেফতার করে।

পরে অন্যান্য আসামীরা হাইকোর্টে  আগাম জামিন আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করে চার সপ্তাহের মধ্যে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন।

গতকাল রবিবার (৩১ জুলাই) আসামিরা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির হয়ে স্থায়ী জামিনের জন্য আবেদন করে।

বিজ্ঞ আদালত তাদের  জামিন আবেদন না-মন্জুর করে সবাইকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ প্রদান করেন।

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ...