আজ ২৮শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১২ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বিয়ের দাবিতে মুসলিম নারী, হিন্দু প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান

বেলাব (নরসিংদী) প্রতিনিধিঃ

সনাতন ধর্মের প্রেমিক জুয়েল পালের বাড়িতে বিয়ের দাবিতে দুই দিন ধরে অবস্থান করছে তানিয়া আক্তার রিয়া(২০) নামে এক মুসলিম নারীা। এদিকে প্রেমিকের অবস্থানের খবর শুনে বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছে লম্পট প্রেমিক জুয়েল পাল। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার পাটুলী ইউনিয়নের সুটুরিয়া গ্রামের পাল বাড়িতে। জুয়েল পাল উক্ত গ্রামের রতন পালের ছেলে এবং রিয়া একই গ্রামের প্রবাসী আবদুল কাশেমের মেয়ে। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে এলাকার জনপ্রতিনিধি ও মাতাব্বররা ঘটনাটি অর্থের বিনিময়ে মিমাংসার নামে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্ঠা করছে।

জানা যায়,তানিয়া আক্তার রিয়াকে সামাজিক ও পারিবারিক ভাবে ৬ বছর পূর্বে বিয়ে দেয়া হয় পাশ্ববর্তী মনোহরদী উপজেলার চালাকচর গ্রামের সুন্দর আলীর ছেলে প্রবাসী সুমন মিয়ার সাথে। বিয়ের পর স্বামী বিদেশ চলে গেলে রিয়ার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে সুটুরিয়া পাল বাড়ির রতন পালের ছেলে লম্পট জুয়েল পালের সাথে। প্রেমের ফাঁকে জুয়েল রিয়ার সাথে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়। সেই শারীরিক সম্পর্কের দৃশ্য গোপনে মোবাইলে ভিডিও করে রাখে জুয়েল পাল। এই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিবে এমন ভয় দেখিয়ে রিয়ার কাছ থেকে জুয়েল পাল হাতিয়ে নেয় স্বর্ন অলংকারসহ প্রায় কয়েক লক্ষ  টাকা।

এক পর্যায়ে রিয়ার স্বামী সুমন মিয়া বিদেশ থেকে আসলে তার কাছেও রিয়ার সাথে তার অন্ত্মরঙ্গ ছবি ও ভিডিও আছে বলে জানিয়ে দেয় প্রেমিক জুয়েল পাল। এ নিয়ে স্বামীর সাথে ঝগড়া ও সম্পর্কের টানাপোড়ন সৃষ্টি হয় রিয়ার। ঘটনাটি রিয়ার স্বামীর বাড়ি ও বাবার বাড়ির সবাই জেনে গেলে লম্পট জুয়েল পাল রিয়াকে বিয়ে করার আশ্বাস দিয়ে তার স্বামীর বাড়ি থেকে চলে আসতে বলে।
প্রেমিক জুয়েলের কথামত রিয়া স্বামীর বাড়ি থেকে চলে আসে বাবার বাড়ি। এরই ফাঁকে জুয়েলকে অন্যত্র বিয়ে ঠিক করে জুয়েলের পরিবার। গত রবিবার ছিল জুয়েল পালের গায়ে হলুদ। এ খবর শুনে রবিবার দিনই রিয়া জুয়েলের বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অবস্থান করলে লম্পট জুয়েলকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয় তার পারিবার।

ভুক্তভোগী রিয়া জানায়,জুয়েল ধর্ম ত্যাগ করে আমাকে বিয়ে করবে বলে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক করে আমার সাথে। এ সম্পর্কের ছবি ও ভিডিওর ভয় দেখিয়ে আমার কাছ থেকে সে প্রায় চার লক্ষ টাকা বিভিন্ন সময় নেয়। আমার স্বামীর বাড়ির লোকজনের কাছেও সম্পর্কের সব কথা বলে দেয় সে। আমাকে বিয়ে করবে বলে স্বামীর বাড়ি থেকে নিয়ে এসে অন্যত্র বিয়ে করার প্রস্তুতি নেয়। এ কারনে আমি বিয়ের দাবিতে তার বাড়িতে অবস্থান নিয়েছি। আমাকে বিয়ে না করলে আত্মহত্যা ছাড়া আমার আর কোন পথ থাকবেনা।

রিয়ার বোন প্রিয়া আক্তার অভিযোগ করে বলেন, জুয়েল আমার বোনের সাথে ধর্ম ত্যাগ করার কথা বলে সম্পর্ক তৈরী করে। সে সম্পর্কের কথা জুয়েল আমার বোনের স্বামীর বাড়ির লোকজনের কাছে বলে দেয়। তার কারনে আমার বোন স্বামীর বাড়িতেও যেতে পারছেনা।

জুয়েল পালের বাবা রতন পাল বলেন,আগে এ ঘটনা জানতাম না। এখন রিয়া আমার বাড়িতে অবস্থান করার পর সব জেনেছি। জুয়েল বর্তমানে বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছে। এলাকার চেয়ারম্যান ও মাতাব্বররা বিষয়টি মিমাংসা করার চেষ্ঠা করছে।

স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার আব্দুর রশিদ বলেন,খবর শুনে রবিবার দিন রাতেই আমরা চেয়ারম্যানসহ বসেছিলাম। ছেলের অভিভাবকদের বলেছিলাম আজ সোমবার সকাল ৮ টার মধ্যে ছেলে যেখানেই আছে যেন বাড়িতে আনে। কিন্তু তারা আনতে পারেনি। আজ বিকালে আবার আমরা বসে দেখি কি করতে পারি।

ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ইফরানুল হক ভূইয়া জামান এ ব্যাপারে রাতে বসার কথা স্বীকার করে বলেন,সমস্যা হচ্ছে ছেলে মেয়ে দুই ধর্মের। তারপরও দেখি সামাজিক ভাবে ঘটনাটি মিমাংসা করা যায় কিনা?

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ...