আজ ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৬শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মনোহরদীতে ভূয়া চিকিৎসকের জরিমানা ও ক্ষতিপূরণ আদায়

মনোহরদী (নরসিংদী) প্রতিনিধি

নরসিংদীর মনোহরদীতে ডাক্তার পদবী ব্যবহার করায় নারায়ণ চন্দ্র মোদক নামে এক ভুয়া চিকিৎসককে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ ছাড়া ভূল চিকিৎসা দেওয়ায় বাচ্চু মিয়া নামে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিকে ৮০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ আদায় করে দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক আব্দুস সালাম এ আদেশ দেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন মনোহরদী উপজেলা নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক শাহনেওয়াজ।

ক্ষতিগ্রস্থ বাচ্চু মিয়া চালাকচর গ্রামের আবু সিদ্দিকের ছেলে। তিনি পেশায় একজন গাড়ী চালক।
কথিত চিকিৎসক চালাকচর বাজারের নিউ অনন্যা ফার্মেসীর সত্বাধীকারী। কোন সনদ না থাকলেও তিনি দীর্ঘদিন ধরে চালাকচর বাজারে ফি নিয়ে রোগী দেখে আসছেন।

ভূক্তভোগী বাচ্চু মিয়ার স্ত্রী সেলিনা বেগম জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর নরসিংদী কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ দেন। এর প্রেক্ষিতে তারা এই অভিযান পরিচালনা করেন।

ক্ষতিগ্রস্থ বাচ্চু মিয়া জানান, চারমাস আগে তাঁর পায়ে চুলকানী দেখা দেয়। পরে ওষুধ আনতে চালাকচর বাজারের নিউ অনন্যা ফার্মেসীতে যান। সেখানে কথিত চিকিৎসক নারায়ণ চন্দ্র মোদকের পরামর্শে তার সহযোগী মাসুমকে দেখালে তিনি কিছু ওষুধ লিখে দেন। এতে প্রতিকার না পেয়ে এক সপ্তাহ পর পুনরায় সেখানে যান বাচ্চু মিয়া। কোন পরীক্ষা ছাড়াই নারায়ণ চন্দ্র মোদক তার নিজস্ব ব্যবস্থাপত্রে নতুন করে ইঞ্জেকশনসহ কিছু ওষুধ লিখে দিয়েছেন।

সেগুলো প্রয়োগের পর তাঁর অবস্থার অবনতি হতে থাকে। এক পর্যায়ে বাচ্চু মিয়ার শরীরের চামড়া পুড়তে থাকে। হাতের নখ, মাথার চুল ও পশম ঝড়তে থাকে। এরপর বাচ্চুর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় স্বজনরা তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ^বিদ্যালয়ে ভর্তি করেন। বর্তমানে তিনি ওই মেডিক্যালের সহকারী অধ্যাপক এটিএম আসাদুজ্জামানের তত্বাবধানে রয়েছেন। চিকিৎসক জানিয়েছেন বাচ্চু মিয়া অপচিকিৎসার শিকার।

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ...