আজ ২রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

লালমনিরহাটে গৃহবধূ মাহমুদাকে এসিড নিক্ষেপ মামলায় শশুর-শাশুড়ি গ্রেফতার!

আশরাফুল হক, লালমনিরহাট।

অনলাইন পোর্টাল নরসিংদী পোস্টসহ বেশ কিছু মিডিয়ায় সংবাদ প্রকাশের পর লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় গৃহবধূ মাহমুদাকে এসিড নিক্ষেপের মামলায় শ্বশুর-শাশুড়িকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) দুপুরে গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করেন হাতীবান্ধা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলম।

এর আগে সোমবার (২৯ আগস্ট) সকালে জামালপুর জেলা শহর থেকে সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশের সহায়তায় তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতাররা হলেন- উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নের গেন্দুকুড়ি গ্রামের আতোয়ার রহমান ও তার স্ত্রী হামিদা বেগম।

এসিড দগ্ধ মাহমুদা বেগম উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নের গেন্দুকুড়ি গ্রামের আতোয়ার রহমানের ছেলে হামিদুল ইসলামের স্ত্রী। তিনি একই উপজেলার নওদাবাস ইউনিয়নের কেতকীবাড়ি গ্রামের আব্দুল মালেকের মেয়ে।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নের গেন্দুকুড়ি গ্রামের আতোয়ার রহমানের ছেলে হামিদুল ইসলামের সঙ্গে চার বছর আগে বিয়ে হয় মাহমুদা বেগমের। বিয়ের পর থেকেই স্বামী হামিদুল শ্বশুর আতোয়ার শাশুড়ি হামিদাসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন মাহমুদাকে কারণে অকারণে নির্যাতনসহ তালাকের হুমকি দিয়ে আসছে।

গত ১৩ জুলাই রাত সাড়ে ৮টার দিকে শ্বশুর-শাশুড়িসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন মাহমুদার গায়ে এসিড ঢেলে দেয়। এ সময় তার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এ ঘটনায় পরের দিন ১৪ জুলাই মাহমুদার বাবা আব্দুল মালেক বাদী হয়ে হাতীবান্ধা থানায় পাঁচজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর পুলিশ মাহমুদার ননদ আছিয়া বেগমকে আটক করে। ঘটনার পর থেকে গা ঢাকা দেন গৃহবধূর স্বামী, শ্বশুর-শাশুড়িসহ অভিযুক্তরা।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে হাতীবান্ধা থানা পুলিশ জামালপুর জেলা শহরে অভিযান চালিয়ে সংশ্লিষ্ট থানার সহায়তা সোমবার (২৯ আগস্ট) সকালে রিকশা চালানো অবস্থায় অভিযুক্ত শ্বশুর আতোয়ার রহমানকে গ্রেফতার করে। পরে তার দেওয়া তথ্যমতে একই এলাকায় ভাড়া নেওয়া বাসা থেকে তার স্ত্রী হামিদা বেগমকেও গ্রেফতার করে পুলিশ।

হাতীবান্ধা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহা আলম জানান, এসিড নিক্ষেপের এ মামলায় পাঁচজনের মধ্যে তিনজনকে গ্রেফতার করা হলো। বাকিদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ...