আজ ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শহীদ ময়েজউদ্দীন সাহেব বেঁচে থাকলে কালিগঞ্জ হত আধুনিক শহর মেহের আফরোজ চুমকি এমপি।

জাকারিয়া আল মামুন- গাজীপুর জেলা প্রতিনিধি

গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার ঐতিহাসিক সোমবাজার মাঠে শহীদ ময়েজউদ্দীন সাহেবের স্মরণসভা অনুষ্টিত হয়েছে।

আজ ২৪ সেপ্টেম্বর শনিবার তুমলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের আয়োজনে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী সালাউদ্দিনের সভাপতিত্বে,সাধারন সম্পাদক বজলুর রহমানের সঞ্চালনায় শহীদ ময়েজউদ্দীন সাহেবর ৩৮ শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে দোয়া ও আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়েছে।

স্মরণসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ চুমকি এমপি।
বক্তব্য রাখেন এডভোকেট আশরাফী মেহেদী হাসান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এইচ এম আবুবকর চৌধুরী,উপজেলা চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন পলাশ, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এইচ এম আবুবকর,সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল গণি ভুইয়া, উপজেলা আ’লীগের উপদেষ্টা দেলোয়ার হোসেন,ইউপি চেয়ারম্যান আবুবকর মিয়া,তাসলিমা রহমান লাভলী,যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী হারুন অর রশিদ টিপু,উপজেলা মহিলা আ’লীগের সভাপতি জুয়েনা আহমেদ,উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াহিদ হাসান,ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি সোহেল খান,সাধারন সম্পাদক শরিফ হোসেন , ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি আবু রায়হান রাসেল ,ইউনিয়ন আ’লীগের প্রতিটি ওয়ার্ড আ’লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক,ইউপি মেম্বার।

উপস্থিত ছিলেন পৌর মেয়র এস এম রবিন হোসেন,উপজেলা আওয়ামী লীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক শরিফ হোসেন খান কনক,ইউপি চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান ফারুক, আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি কাদির মাষ্টার উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান শর্মিলা রোজারিও,আ’লীগের উপদেষ্টা মোর্শেদ খান, নূরুল ইসলাম,থানা অফিসার ইনসার্চ আনিসুর রহমান, আ’লীগের নেতা মোমেন সরকার, জাঙ্গালিয়া ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক শ‍্যামল বাবু, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তানভির মোল্লা,উপজেলা মহিলা যুবলীগ সভাপতি পিয়ারা বেগম শান্তা,পৌর সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোফাজ্জল হোসেন,কালীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক সেলিনা আনোয়ার।

বক্তারা বলেন
জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর শহীদ ময়েজউদ্দীন সাহেব আওয়ামী লীগের সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে জনগণের ভোট ও ভাতের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে কালীগঞ্জে আন্দোলন করতে গিয়ে ১৯৮৪ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর কুখ্যাত খুনীদের হাতে নির্মমভাবে খুন হতে হয়েছিল। তার চেয়েছিল ময়েজউদ্দীন কে হত্যা করে কালীগঞ্জ থেকে আওয়ামী লীগের ইতিহাস ধ্বংস করে দিবে। শহীদ ময়েজউদ্দীন কালীগঞ্জর দরিদ্র জনগোষ্ঠীর সেবার জন্য বিভিন্ন স্থানে হাসপাতাল নির্মাণ করেছিল,তিনি রেডক্রিসেন্টের সভাপতি থাকা কালে শতশত মানুষের জন্য কাজ করে গেছেন। সকল বক্তারা এই মহান নেতার খুনীদের আইনের আওতায় এনে বিচারের মুখোমুখি করার আহবান করেন। এবং সোমবাজার মাঠে শহীদ ময়েজউদ্দীনের নামে একটি হাসপাতাল তৈরী করার আহবান জানান।

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ...