আজ ২রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৫ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

রায়পুরায় গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা

রায়পুরা নরসিংদী প্রতিনিধি

নরসিংদীর রায়পুরায় এক গৃহবধূকে(২৫)হাত পা বেঁধে জোড়পূর্বক ধর্ষনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত রবিবার মধ্যরাতে ঘরের দরজা ভেঙে তিন যুবক ঘরে ঢুকে সন্তানদের সামনে মুখ হাত পা বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগে শুক্রবার থানায় মামলা করেছেন ধর্ষনেন শিকার গৃহবধু।

মামলার আসামিরা হলেন উপজেলার মির্জাপুর এলাকার রাশেদ মিয়ার ছেলে শরিফ হাসান (২৫)। একই এলাকার জামাল মিয়ার ছেলে শাহ পরান (২২) ও আলী আকবরের ছেলে শাহাবদ্দীন(২২)

পুলিশ ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা গেছে,উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের মির্জাপুর এলাকায় ওই গৃববধূ দুই সন্তানকে নিয়ে নিজ বাড়িতে থাকেন। তাঁর স্বামী এক বছর ধরে বিদেশ থাকেন।

ঘটনার দিন রাত আনুমানিক ২টার সময় ভুক্তভোগী নিজ ঘরে দুই শিশু সন্তান নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। রাতে আগ থেকেই উৎপেতে থাকা ওই তিন যুবক দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করেন এবং কিছু বুঝে ওঠার আগেই ওই গৃহবধূর হাত, পা, মুখ গামছা দিয়ে বেঁধে সন্তানদের গলায় ছুরি ধরে সামনেই তাঁকে জোর পূর্বক পালা ক্রমে একাধিক বার পাশবিক নির্যাতন চালায়।

ঘটনার সময় ওই নারীর শিশুসন্তানরা চিৎকার দেয়ার ভয়ে অভিযুক্তরা তাদের গলায় ছুরি ধরে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করেন। ধর্ষনের পর অভিযুক্ত ব্যক্তিরা দৌড়ে পালিয়ে যায়।

সকালে ওই ভুক্তভোগী স্বজনদের জানায়। অভিযুক্তরা প্রভাবশালী হওয়ায় মামলা না করার ভয় দেখিয়ে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছে। এ ঘটনার একদিন পর মঙ্গলবার বিকেলে রায়পুরা থানায় লিখিত অভিযোগ করেন ভুক্তভোগীর পরিবার।

গত শুক্রবার রাতে রায়পুরা থানায় মামলাটি এজাহার ভুক্ত হয়। এ ঘটনায় জড়িত ধর্ষকদের কঠিন শাস্তি দাবি করেন ভুক্তভোগী পরিবার ও স্থানীয় বাসিন্দারা।

ওই গৃহবধূ নরসিংদী পোস্টকে জানান, নরপশুরা রাতে ঘরের দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে শিশু সন্তানদের গলায় ছুরি ধরে হত্যার ভয় দেখিয়ে মুখ হাত পা বেঁধে জোর পূর্বক পালাক্রমে শরিফ হাসান ও শাহ পরাণ ও শাহাবদ্দীন ধর্ষণ করে হত্যার হুমকি দিয়ে পালিয়ে যায়।

আমার মত আর কারও জীবন যেন বিনষ্ট না হয়। স্বামীর পরিবার থেকেও ছেড়ে দেয়ার কথা শোনা যাচ্ছে। তাদের কারনে জীবনে কলংকের দাগ পড়েছে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে ধর্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি জানায় ধর্ষনের শিকার গৃহবধু।

রায়পুরা থানার পরিদর্শক তদন্ত গোবিন্দ সরকার বলেন, এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেয়ে শুক্রবার রাতে মামলা হয়েছে। আসামিকে দ্রুত গ্রেপ্তারে পুলিশী অভিযান অব্যাহত আছে।
সহকারী পুলিশ সুপার রায়পুরা সার্কেল সত্যজিৎ কুমার ঘোষ বলেন, অভিযুক্তদের ধরতে পুলিশী অভিযান অব্যাহত আছে।

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ...